আর্জেন্টিনা হতে পারবে চ্যাম্পিয়নদের চ্যাম্পিয়ন?

আর্জেন্টিনা হতে পারবে চ্যাম্পিয়নদের চ্যাম্পিয়ন?

সম্প্রতি, বেশ ভালো সময় কাটছে আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের। আন্তর্জাতিক ফুটবলে টানা ৩১ ম্যাচ অপরাজিত রয়েছে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। এছাড়া, গত বছর ব্রাজিলকে হারিয়ে দীর্ঘ ২৮ বছর পর আন্তর্জাতিক ট্রফি জয়ের আক্ষেপ ঘুচায় আর্জেন্টিনা।

তবে, সময়টা মোটেও ভালো যাচ্ছে না ইউরো চ্যাম্পিয়ন ইতালির। সম্প্রতি, বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ব্যার্থতার দরুণ ২০২২ বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে পারবে না ৪ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইতালি।

আর্জেন্টিনা ফুটলব দল যেন হারতেই ভুলে গেছে! ২০১৯ কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। সেই ম্যাচে আর্জেন্টিনাকে ২-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছিল ব্রাজিল। এরপর কেটে গেছে এক হাজারটি দিন, আর্জেন্টিনাও খেলে ফেলেছে ৩১টি ম্যাচ। তবে এই ৩১ ম্যাচে কোনো দলই হারাতে পারেনি আর্জেন্টিনাকে।

আর্জেন্টিনা হতে পারবে চ্যাম্পিয়নদের চ্যাম্পিয়ন?
২০২১ কোপা আমেরিকা ট্রফি হাতে আর্জেন্টিনা

[ আর্জেন্টিনা হতে পারবে চ্যাম্পিয়নদের চ্যাম্পিয়ন? ]

২০১৯ সালের কোপা আমেরিকার পর লাতিনের শক্তিশালী দলগুলোর বিপক্ষে কয়েকটি করেই ম্যাচ খেলেছে আর্জেন্টিনা। এর মধ্যে পরাশক্তি ব্রাজিলের বিপক্ষেও খেলেছে তিন ম্যাচ। কিন্তু কোনো ম্যাচেই আর্জেন্টিনাকে হারাতে পারেনি ব্রাজিল। বরং ব্রাজিলের মাঠে ব্রাজিলকে হারিয়ে আর্জেন্টিনা জিতে নিয়েছে ২০২১ সালের কোপা আমেরিকার শিরোপা। এই ৩১ ম্যাচের মধ্যে ২১টিতে জয় পেয়েছে আর্জেন্টিনা, বাকি ১০টি ম্যাচ ড্র হয়েছে।

ইউরোপের পরাশক্তি দলগুলোর মধ্যে কেবল জার্মানির বিপক্ষে খেলেছিল আর্জেন্টিনা। সেই ম্যাচে জার্মানি ২-২ গোলে ড্র করেছিল আর্জেন্টিনার বিপক্ষে।

বুধবার ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে ফাইনালিসিমা ম্যাচে মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা ও ইতালি। এই ম্যাচ দিয়েই নির্ধারিত হবে চ্যাম্পিয়নদের চ্যাম্পিয়ন কোন দল। গত বছর কোপা আমেরিকা জিতেছে আর্জেন্টিনা আর ইউরো কাপের শিরোপা ঘরে তুলেছিল ইতালি।

সে দুই দলকে নিয়েই হবে এবার ফাইনালিসিমা ম্যাচটি। সেই ম্যাচের সতর্ক সাবধানী ইতালি। টানা ৩১ ম্যাচ অপরাজিত থেকে উড়তে থাকা আর্জেন্টিনার বিপক্ষে নামার আগে সেরা প্রস্তুতি নিতে হবে বলে জানালেন ইতালির গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি ডনারুম্মা।

ক্লাব ফুটবলে ফ্রেঞ্চ ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ে খেলেন ডনারুম্মা। যেখানে তার সতীর্থ হিসেবে রয়েছেন লিওনেল মেসি, লেওনার্দো পারেদেস, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার মতো আর্জেন্টাইন তারকারা। তবে এখন জাতীয় দলের লড়াই হওয়ায় বন্ধুত্ব এক পাশেই রেখে দিয়েছেন তারা।

আর্জেন্টিনা হতে পারবে চ্যাম্পিয়নদের চ্যাম্পিয়ন?
জিয়ানলুইজি ডোনারুম্মা

ডনারুম্মা বলেছেন, ‘শেষ ম্যাচ খেলে পিএসজি থেকে এখানে চলে আসার পর আমাদের তেমন কথা হয়নি। আর্জেন্টিনা দুর্দান্ত দল। এই ম্যাচের জন্য আমাদের সেরা প্রস্তুতি নিতে হবে যদি আমরা জিততে চাই।’

এখন পর্যন্ত আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ১৬ ম্যাচ খেলে ছয়টি জিতেছে ইতালি। বাকি দশ ম্যাচের পাঁচটিতে জয় আর্জেন্টিনার, ড্র হয়েছে পাঁচটি। তবে শেষ পাঁচ ম্যাচে আর্জেন্টিনাকে হারাতে পারেনি আজ্জুরিরা। এছাড়া কাতার বিশ্বকাপের টিকিট না পাওয়ায় কোণঠাসা অবস্থায়ই আছে তারা।

কঠিন সময়ের ব্যাপারে ডনারুম্মা বলেছেন, ‘এই বছরটি একদমই সহজ নয়। তবে আমি এখনও আশাবাদী, কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছি। বিশ্বকাপের হতাশা এখনও তাজা। আমাদের নতুন করে শুরু করতে হবে এবং ফল পক্ষে আনতে হবে। ইউরো কাপে আমরা কী করেছি তা ভুলে গেলে চলবে না।’

২০২১ সালে রিও ডি জেনেরিওতে ব্রাজিলকে হারিয়ে কোপা আমেরিকার শিরোপা জয় করে আর্জেন্টিনা। আর এতেই ঘুচে ২৮ বছরের শিরোপা খরা। সেবারের আসরে লিওনেল মেসির ছিলেন দুর্দান্ত। বল পায়ে এক অনন্য মেসির দেখা মেলে সেবার। এবার আর্জেন্টিনার সামনে আরও একটি শিরোপা জয়ের হাতছানি। ওয়েম্বলিতে বুধবার (১ জুন) ‘লা ফিনালিসিমা’ ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে। যেখানে ইরোপ চ্যাম্পিয়ন ইতালি মুখোমুখি হবে লাতিন আমেরিকান চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনার।

ওয়েম্বলিতে বুধবার (১ জুন) ‘লা ফিনালিসিমা’ ম্যাচের আগে সংবাদ মাধ্যমকে আর্জেন্টাইন মহাতারকা এবং অধিনায়ক লিওনেল মেসি জানিয়েছেন, আর্জেন্টাইন সমর্থকদের জন্য আরও একটি শিরোপা আনতে যাচ্ছেন তিনি।

লন্ডনের বিখ্যাত ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে বুধবার রাতে ইউরোজয়ী ইতালির মুখোমুখি হবে মেসির আর্জেন্টিনা। কোপা জয়ী দলকে নেতৃত্ব দিয়ে আরেকটি শিরোপা এনে দিতে চান ৩৪ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড, ‘এটা নিছক একটা ম্যাচ নয়; ফিফা স্বীকৃত প্রতিযোগিতা। আর্জেন্টিনার মানুষ ও সমর্থকদের জন্য আরেকটি শিরোপা আনতে যাচ্ছি।’

আর্জেন্টিনা হতে পারবে চ্যাম্পিয়নদের চ্যাম্পিয়ন?
ফ্রেঞ্চ লীগ ট্রফি হাতে মেসি

পিএসজিতে লিগ ওয়ান জিতলেও মেসি এখনো ভুলতে পারেননি বার্সেলোনাকে। আর্জেন্টাইন টেলিভিশন চ্যানেল টিওয়াইসি স্পোর্টসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মেসি বলেছেন, ‘মানতে তো কষ্ট হয়-ই। কখনো ভাবিনি (বার্সা ছাড়া) অন্য ক্লাবে খেলব। আর্জেন্টিনার হয়ে অনেকগুলো ফাইনাল হারের পর গত বছর কোপা আমেরিকার শিরোপা জয় অনেক আনন্দের ছিল। খুব খুশি মনে বার্সেলোনায় ফিরেছিলাম। এসেই হঠাৎ কী যে হয়ে গেল!’

আরও পড়ুন:

“আর্জেন্টিনা হতে পারবে চ্যাম্পিয়নদের চ্যাম্পিয়ন?”-এ 3-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন