টেস্ট সিরিজ হারলেও ওয়ানডে সিরিজ ঠিকই জিতলো পাকিস্তান

টেস্ট সিরিজ হারলেও ওয়ানডে সিরিজ ঠিকই জিতলো পাকিস্তান !!!

২৪ বছর পরে পাকিস্তান সফরে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। এই সফরে ৩ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ১-০ তে হারে স্বাগতিক পাকিস্তান। তবে, সফরকারি অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঠিকই ওয়ানডে সিরিজ ২-০তে জিতে নিয়েছে পাকিস্তান। সিরিজের প্রথম ম্যাচটি হারলেও পরের ২টি ওয়ানডে ম্যাচ টানা জিতে সিরিজ নিজেদের নামে করে পাকিস্তান। এই ওয়ানডে সিরিজ জয়ের মাধ্যমে ২০ বছর পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে কোনো দ্বিপাক্ষিক সিরিজ জয় করলো পাকিস্তান।

 

টেস্ট সিরিজ হারলেও ওয়ানডে সিরিজ ঠিকই জিতলো পাকিস্তান
বাবর এবং ইমাম

লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৮৮ রানে হারে পাকিস্তান। প্রথম ম্যাচেই আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্রিকেটে নিজের প্রত্যাবর্তনটা স্মরণীয় করে রাখেন টেস্ট ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ট্রাভিস হেড। ব্যাটিংয়ে ৭২ বলে ১০১ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলার পর বল হাতেও নিলেন ২টি উইকেট। তার অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে ভর করেই লাহোরে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে পাকিস্তানকে ৮৮ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে সফরকারি অস্ট্রেলিয়া।

[ টেস্ট সিরিজ হারলেও ওয়ানডে সিরিজ ঠিকই জিতলো পাকিস্তান ]

প্রথমে ব্যাট করে ৭ উইকেটে ৩১৩ রানের বড় সংগ্রহ দাঁড় করায় অস্ট্রেলিয়া। জবাবে ৪৬তম ওভারে ২২৫ রানে গুটিয়ে যায় পাকিস্তান। হেডের সেঞ্চুরির জবাবে তিন অংকের ম্যাজিক ফিগার স্পর্শ করেন ইমাম-উল-হক। কিন্তু বৃথাই যায় পাকিস্তানি ইমামের লড়াকু সেঞ্চুরিটি।

৩১৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে একটা সময় বেশ ভালো অবস্থানে ছিলো পাকিস্তান।

দলীয় ২৪ রানের মাথায় ফাখর জামানকে (১৮) হারালেও দ্বিতীয় উইকেটে ৯৬ রানের জুটিতে দলকে লড়াইয়ে ফেরান বাবর আজম আর ইমাম।

২৪ ওভারে ১ উইকেটে ১২০ রান ছিল পাকিস্তানের। কিন্তু বাবর (৭২ বলে ৬ বাউন্ডারিতে ৫৭) মিচেল সোয়েপসনের বলে এলবিডব্লিউ হওয়ার পরই হঠাৎ খেই হারিয়ে ফেলে স্বাগতিকরা।

পরের ব্যাটাররা কেউ বিশের ঘরও ছুঁতে পারেননি। একে একে সাজঘরের পথ ধরেন সৌদ শাকিল (৩), মোহাম্মদ রিজওয়ান (১০), ইফতিখার আহমেদ (২), খুশদিল শাহ (১৯)।

টেস্ট সিরিজ হারলেও ওয়ানডে সিরিজ ঠিকই জিতলো পাকিস্তান
উইকেট নেয়ার পর পাকিস্তানের উদযাপন

একাই লড়াই চালিয়ে যাচ্ছিলেন ইমাম। তবে তিনি যখন ৩৯তম ওভারে অভিষিক্ত নাথান এলিসের বলে বোল্ড হন, তখনই বলতে গেলে জয়ের আশা শেষ হয়ে যায় পাকিস্তানের।

তবে, সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অবিশ্বাস্যভাবে ঘুড়ে দাঁড়ায় পাকিস্তান। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে টস জিতে ফিল্ডিং নেয়ার সিধান্ত নেয় পাকিস্তান।

ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই অধিনায়ক অ্যারোন ফিঞ্চ শূন্য রানে আউট হয়ে যান। গোল্ডেন ডাক মারেন তিনি। প্রথম ওভারে শাহিন শাহ আফ্রিদি যে ঝড় তোলার আভাস দিয়েছিলেন, সেটা নিজেদের অনুকুলে টেনে নেয় অস্ট্রেলিয়ানরা।

ট্রাভিস হেড এবং বেন ম্যাকডারমট মিলে ১৬২ রানের বিশাল জুটি গড়ে তোলেন। ৭০ বলে ৮৯ রান করে আউট হন ট্রাভিস হেড। ১০৮ বল খেলে ১০৪ রান করে আউট হন বেন ম্যাকডারমট।

মার্নাস ল্যাবুশেন ৪৯ বলে করেন ৫৯ রান। মার্কাস স্টোইনিজ ৩৩ বলে ৪৯ রান করে আউট হন। শেষ দিকে সিন অ্যাবট ১৬ বলে করেন ২৮ রান। শেষ পর্যন্ত ৮ উইকেট হারিয়ে ৩৪৮ রান করে অস্ট্রেলিয়া।

পাকিস্তানের হয়ে শাহিন শাহ আফ্রিদি নেন ৪ উইকেট। ২ উইকেট নেন মোহাম্মদ ওয়াসিম। ১টি করে উইকেট নেন জাহিদ মাহমুদ এবং খুশদিল শাহ।

টেস্ট সিরিজ হারলেও ওয়ানডে সিরিজ ঠিকই জিতলো পাকিস্তান
সেঞ্চুরির পর বাবর

৩৪৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ওপেনার ইমাম উল হক এবং অধিনায়ক বাবর আজমের সেঞ্চুরিতে ৩৪৯ রানের বিশাল লক্ষ্য অচিরেই ছুয়ে ফেলে পাকিস্তান।

সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় ওয়ানডেতে পাকিস্তানী বোলারদের বোলিং তোপে পড়ে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং লাইন আপ।টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৬ রানেই অস্ট্রেলিয়া হারিয়েছিল তিন উইকেট। শাহিন শাহ আফ্রিদির করা ম্যাচের প্রথম বলেই বোল্ড হন দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ট্রাভিস হেড।

দ্বিতীয় ওভারে রানের খাতা খোলার আগেই অসি অধিনায়ক অ্যারোন ফিঞ্চকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন হারিস রউফ। গত ম্যাচেও ‘ডাক’ মেরেছিলেন ফিঞ্চ। ষষ্ঠ ওভারে মার্নাস লাবুশেনকে (৭) ইফতিখার আহমেদের ক্যাচ বানান হারিসই।

এরপর বেন ম্যাকডারমটের ৩৬, অ্যালেক্স ক্যারির ৫৬, ক্যামেরন গ্রিনের ৩৪ ও শন অ্যাবটের ৪৯ রানের ওপর ভর করে ২১০ পর্যন্ত যেতে সক্ষম হয় অসিরা। পাকিস্তানের হারিস রউফ ও মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র ৩টি করে উইকেট নেন। এছাড়া শাহিন শাহ আফ্রিদির শিকার ২ উইকেট।

অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া ২১১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে পাকিস্তান জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় ৩৭.৫ ওভারেই, মাত্র ১ উইকেট হারিয়ে। ১০৫ রানে অপরাজিত থাকেন বাবর। ইমাম-উল হক অপরাজিত থাকেন ৮৯ রানে। রান তাড়া করতে নেমে দলীয় ২৪ রানে ফাখর জামানকে হারানোর পর অবিচ্ছিন্ন ১৯০ রানের জুটি গড়েন বাবর ও ইমাম।

এ জয়ে, ২০ বছর পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে কোনো দ্বিপাক্ষিক ওয়ানডে সিরিজ জিতলো পাকিস্তান।

আরও পড়ুন:

 

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে দেখুন:

“টেস্ট সিরিজ হারলেও ওয়ানডে সিরিজ ঠিকই জিতলো পাকিস্তান”-এ 1-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন