সৌরভ গাঙ্গুলি ক্রিকেটেই থাকছেন?

সৌরভ গাঙ্গুলি ক্রিকেটেই থাকছেন: ভারতীয় কিংবদন্তী ক্রিকেটারদের মধ্যে নিঃসন্দেহে সৌরভ গাঙ্গুলির নাম প্রথম কাতারেই থাকবে। নিজের খেলোয়াড়ি জীবনে যেভাবে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন সৌরভ, ঠিক তেমনি খেলোয়াড় পরবর্তী জীবনেও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডকে দেখাচ্ছেন সঠিক গতিপথ। জীবনের বিভিন্ন চড়াই উতরাই পার করেই এ পর্যন্ত এসেছেন সৌরভ।

২০০০ সাল, হঠাৎ করেই যেন একগুচ্ছ কালো মেঘ এসে জমা হলো ভারতীয় ক্রিকেটের আকাশে। আচমকা বজ্রপাতের আওয়াজ শুনে স্তব্ধ হয়ে যাওয়া পথিকের মতোই হয়ত সেদিন অবস্থা হয়েছিল লক্ষ্য কোটি ভারতীয় ক্রিকেট প্রেমীর। ম্যাচ পাতানোর অভিযোগে ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হন তারকা ক্রিকেটার মোহাম্মদ আজহারউদ্দীন, অজয় জাদেজাসহ বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার।

এক তো, শচীন টেন্ডুলকারের নেতৃত্বে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খুব একটা ভালো সময় যাচ্ছিল না ভারতীয় দলের। তার মধ্যে এই ম্যাচ ফিক্সিং বিতর্ক যেন মরার ওপর খারার ঘা হয়ে উঠেছিল ভারতীয় ক্রিকেটের উপর। এমন সময়ই, দলের হাল ধরেছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলি। এরপরের গল্প হয়ত সবারই জানা। কিন্তু, দাদা একদিনেই এই গল্পের নায়ক বনে যাননি। তাকেও পারি দিতে হয়েছে বহু কন্টকাকীর্ণ পথ।

[ সৌরভ গাঙ্গুলি ক্রিকেটেই থাকছেন? ]

প্রিন্স অব কলকাতা খ্যাত সৌরভ গাঙ্গুলি ছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটের গতিপথের পরিবর্তক। তিনি শুধু পুরো ভারতীয় দলে বিশ্বের সেরা দল হওয়ার আত্মবিশ্বাসের সঞ্চারই করে দেননি বরং, তিনি ভারতীয় দলে এমন অনেক ভবিষ্যৎ তারকা ক্রিকেটার রেখে গিয়েছিলেন যাদের হাত ধরে ভারত পরবর্তীতে অর্জন করেছিল বিশ্বসেরা হওয়ার গৌরব।

সৌরভ গাঙ্গুলি যেমন আত্মবিশ্বাসে ধুকতে থাকা ভারতীয় দলে সঞ্চার করেছিলেন জয়ী হওয়ার তীব্র আত্মবিশ্বাস এবং ঠিক তেমনি দলে তরুণ তুর্কিদের সুযোগ দিয়ে বীজ বপন করেছিলেন এমন এক ভবিষ্যৎ ভারতীয় দলের যা পরবর্তীতে ভারতীয় দলকে এনে দিয়েছিল সেরাদের সেরা হওয়ার স্বাদ। শুধু তরুণদেরই নয়, তিনি আত্মবিশ্বাস জুগিয়েছিলেন খারাপ ফর্মে ভুগতে থাকা বেশ কিছু পরীক্ষিত খেলোয়াড়দেরও।

হোচট খেয়ে পুনরায় উঠে দাড়ানোর নামই জীবন। হারার পর পুনরায় জেতার তীব্র ইচ্ছা নিয়ে জিতে দেখানোর নামই জীবন। সৌরভ গাঙ্গুলি তার অদম্য ইচ্ছাশক্তি এবং নিজের কঠিন সময়েও  ধৈর্য ধরে একাধিক বার হোচট খেয়েও যেভাবে পূর্বের চেয়ে ভয়ানকভাবে উঠে দাড়ানোর স্পর্ধা দেখিয়েছেন, তা জীবনের এই সংজ্ঞাগুলোকেই নির্দেশ করে।

তাই তো নজরুল বলেছেন, “বল বীর চির-উন্নত মম শির!” হয়ত, নজরুল তার কবিতাতে সৌরভের মতো এমন আত্মপ্রত্যয়ী মানুষদেরই কথা বলেছেন যারা শত কঠিন সময়েও জীবন রণক্ষেত্রে পরিস্থিতির সাথে চোখে চোখ মিলিয়ে বীরের মতো লড়ে যায়। শুধুমাত্র ক্রিকেটেই নয় বরং জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই প্রতিকূলতা মোকাবেলায় সৌরভের মতো এমন যোদ্ধারাই মানুষের অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে।

বর্তমানে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতির পদ পালন করছেন সৌরভ গাঙ্গুলি। তবে, সম্প্রতি গুঞ্জন উঠেছে ক্রিকেটপাড়া ছেড়ে নাকি রাজনীতিতে যোগ দেবেন সৌরভ।

সৌরভ গাঙ্গুলি ক্রিকেটেই থাকছেন?
সৌরভের করা প্রথম টুইট

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের টুইট ঘিরে আচমকা তুঙ্গে জল্পনা। সৌরভ লিখেছেন, ‘আজ আমি এমন কিছু শুরু করার পরিকল্পনা করেছি যাতে মানুষের উপকার হয়। আশা করি জীবনের নতুন অধ্যায়ে প্রবেশ করার সময়ে সবার সমর্থন পাব।’ বুধবার এমনটাই টুইট করে জানিয়েছেন তিনি। ১৯৯২ সাল থেকে ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন বলে জানিয়েছেন সৌরভ।

টুইট করে সৌরভ লেখেন, ‘৩০ বছর ধরে ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত। ১৯৯২ সাল থেকে ক্রিকেট খেলছি। ক্রিকেট আমাকে অনেক কিছু দিয়েছে। সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ, ক্রিকেট আমাকে আপনাদের সমর্থন দিয়েছে। আমি সকলকে ধন্যবাদ জানাতে চাই, যাঁরা আমার এই যাত্রার সদস্য ছিলেন। আজ আমি যেখানে পৌঁছেছি, সেটা আপনাদের সাহায্যেই সম্ভব হয়েছে। আজ আমি এমন কিছু শুরু করার পরিকল্পনা করেছি যাতে মানুষের উপকার হয়। আশা করি জীবনের নতুন অধ্যায়ে প্রবেশ করার সময়ে সবার সমর্থন পাব।’

কয়েক সপ্তাহ আগে সৌরভের বাড়িতে নৈশ ভোজ করে গেছেন বিজেপির মুখপাত্র অমিত শাহ। বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের বাড়িতে অমিত শাহের নৈশভোজ নিয়ে চলে তীব্র জল্পনা, গুঞ্জন। শুধু অমিত শাহ সৌরভের বাড়িতে গেলে হয়ত এতটাও আলোড়ন তৈরি হত না। তবে অমিত শাহের সঙ্গে থাকা বহু বিজেপি নেতা সৌরভের বাড়িতে গিয়ে নৈশভোজ করেন। ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী, স্বপন দাশগুপ্ত, অমিত মালব্যরা। এরপর থেকেই ফের বাংলার রাজনৈতিক আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে এসেছিলেন সৌরভ । জানা যায়,  সৌরভের বাড়িতে গিয়ে নৈশভোজ করা ছাড়াও গঙ্গোপাধ্যায়দের চণ্ডী মন্দিরে যান অমিত শাহ।

তবে, আবারো  ক্রিকেটে ফিরলেন সৌরভ গাঙ্গুলি, সেই টুইটারেই।বুধবার আলোড়ন তুলেছিল সৌরভের এ টুইটটি। কারণ, তিনি সেখানে নতুন অধ্যায় শুরু করার কথা বলেছিলেন। তাঁর সেই নতুন অধ্যায় কীসের ইঙ্গিত, তা নিয়ে তুমুল আলোড়ন তৈরি হয়। কেউ কেউ বলেন, ক্রিকেট থেকে একেবারে দূরে সরে যাচ্ছেন তিনি। পরে বোঝা যায়, সেটি বিজ্ঞাপনের প্রচার। বৃহস্পতিবার সৌরভ বুঝিয়ে দেন, তিনি ক্রিকেটেই রয়েছেন।

 সোরভ গাঙ্গুলি ক্রিকেটেই থাকছেন?
সৌরভের করা দ্বিতীয় টুইট

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টে ৪৫-এ একটি টুইট করেন সৌরভ। সেখানে একটি ভিডিয়ো দেন। দেখা যাচ্ছে, ডুবে রয়েছেন ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড টেস্ট ম্যাচে। ইংল্যান্ডের বোলিং দেখে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন তিনি। জেমস অ্যান্ডারসনদের বল সুইং করানোর তারিফ করেছেন বিসিসিআই সভাপতি। সৌরভ লেখেন, ‘ভীষণ তরতাজা। টেস্টে শুরু থেকেই বল সুইং করছে। সাদা জার্সির ক্রিকেটের থেকে ভাল আর কী হতে পারে? টেস্টের প্রথম সকাল।’ প্রথম ১০ ওভারেই স্টুয়ার্ট ব্রড, জেমস অ্যান্ডারসনদের সুইংয়ের দাপটে ধরাশায়ী হয়ে যান কেন উইলিয়ামসনরা। ইংল্যান্ডের এই দুরন্ত বোলিংয়েরই প্রশংসা করেছেন তিনি।

 সোরভ গাঙ্গুলি ক্রিকেটেই থাকছেন?
সৌরভের করা তৃতীয় টুইট

বৃহস্পতিবার সকালে সৌরভ আরও একটি টুইট করেন। সেটিও সম্ভবত কোনও বিজ্ঞাপনী প্রচার। সেখানে তিনি লেখেন, ‘ভারতে এমন জিনিস প্রথম আসছে। রাত ১২টায় প্রকাশিত হবে। এটা পড়াশোনা সংক্রান্ত অ্যাপ নয়।’

আরও পড়ুন:

“সৌরভ গাঙ্গুলি ক্রিকেটেই থাকছেন?”-এ 2-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন