হ্যালান্ডের কাছে গোল করা খুব সহজ !

হ্যালান্ডের কাছে গোল করা খুব সহজ !: হ্যালান্ড [ আরলিং ব্রাউট হোলান্ড ], বর্তমান বিশ্ব ফুটবলের এক উঠতি তারকা। গোল করা যেনো কোনো ব্যাপারই নয় হ্যালান্ডের জন্য। ক্লাব ফুটবলের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ফুটবলও সমানভাবে রাঙিয়ে যাচ্ছেন হ্যালান্ড।

২০১৬ সালে, তার শহরতলীর ক্লাব ব্রিনার হয়ে খেলার মাধ্যমে তার ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন এবং পরের বছরে তিনি মোলদে-এ যোগদান করেছিলেন। ২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসে, আরলিং ব্রাউট হ্যালান্ড  অস্ট্রীয় ক্লাব রেড বুল জালৎস্‌বুর্গে পাঁচ বছরের ভুক্তিতে যোগদান করেছিলেন। ২০১৯–২০ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগে তিনি প্রথম কিশোর হিসেবে টানা পাঁচ ম্যাচে গোল করেছেন, একই সাথে তিনি উক্ত প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় কিশোর হিসেবে ১০টি গোল করেছেন।

হ্যালান্ডের কাছে গোল করা খুব সহজ
নরওয়ের জার্সি গায়ে হ্যালান্ড

[ হ্যালান্ডের কাছে গোল করা খুব সহজ ! ]

জালৎস্‌বুর্গের হয়ে তিনি অস্ট্রীয় বুন্দেসলিগা এবং অস্ট্রীয় কাপ জয়লাভ করেছেন। ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে, তিনি জার্মানির বুন্দেসলিগা ক্লাব বরুসিয়া ডর্টমুন্ডে ২০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে স্থানান্তরিত হয়েছেন। ইংল্যান্ড ফুটবল দলের হয়ে খেলার জন্য যোগ্য হলেও হ্যালান্ড নরওয়ের হয়ে খেলা বেছে নিয়েছিলেন। ২০১৯ ফিফা অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপের পরে (যেখানে তিনি গোল্ডেন বুট জয়লাভ করেছিলেন), হ্যালান্ড ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসে, নরওয়ের জ্যেষ্ঠ দলের হয়ে অভিষেক করেছিলেন। মাত্র দ্বিতীয় টিন এজার হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লিগে করেছেন ১০টি গোল। বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের হয়ে অনূর্ধ্ব ২১ বছর বয়সীদের ইউরোপসেরার পুরস্কার গোল্ডেন বয় জিতেছেন তিনি ২০২০ সালের নভেম্বর মাসে।

হ্যালান্ড জন্মগ্রহণ করেছিলেন ইংল্যান্ডের লিডসে ২০০০ সালের ২১শে জুলাই তারিখে জন্মগ্রহণ করেছেন। তাঁর পিতা, ফুটবলার আলফ-ইঙ্গে হোলান্ড, ইংল্যান্ডের হয়ে খেলেছেন। রিয়াল, বার্সেলোনা ও বায়ার্নের মতো সব ক্লাবের প্রস্তাব উপেক্ষা করে ম্যানচেস্টার সিটিতে নাম লিখিয়েছেন আর্লিং হ্যালান্ড। নরওয়েজিয়ান ‘বিস্ময়’কে দলে টেনে সামনের মৌসুমের জন্য দারুণ দল গড়েছে পেপ গার্দিওলার সিটি।

রোমাঞ্চ ছড়ানো দলবদলে নিজেও রোমাঞ্চিত বরুশিয়া থেকে আসা তারকা। স্কাই ব্লু জার্সিতে চুক্তি স্বাক্ষরের ছবি প্রকাশের পর ক্লাবটির হয়ে নিজের চাওয়া-পাওয়ার কথা জানিয়েছেন। পছন্দের ইংলিশ ক্লাবে গার্দিওলার অধীনে জিততে চান সবকিছু, নিজেকে তুলতে চান সর্বোচ্চ স্থানে। হ্যালান্ড বলেন ‘গোল করতে, শিরোপা জিততে এবং ফুটবলার হিসেবে নিজেকে উন্নত করতে চাই। আমি আত্মবিশ্বাসী, সিটির হয়ে সব করতে পারব। এটি আমার জন্য দুর্দান্ত এক পদক্ষেপ। প্রাক-মৌসুম শুরুর অপেক্ষার তর সইছে না।

সিটি স্কোয়াডে বিশ্বমানের অনেক ফুটবলার আছেন এবং সবসময়ের সেরা কোচের তালিকায় অন্যতম একজন পেপ গার্দিওলা। বিশ্বাস করি লক্ষ্য পূরণ করতে সঠিক জায়গায় এসেছি।’ সিটিজেন স্ট্রাইকার হিসেবে প্রকাশ্যে আসার পর নিজেকে গর্বিতই মনে করছেন হ্যালান্ড, ‘নিজের ও আমার পরিবারের জন্য এই দিনটি গর্বের। সবসময় ম্যানসিটিকে দেখে আসছি এবং সাম্প্রতিক মৌসুমগুলোতে পছন্দ করতে শুরু করেছি।’ ২০২১ সালে সার্জিও আগুয়েরো সিটিজেনদের ডেরা ছাড়ার পর থেকে ভালো একজন স্ট্রাইকার খুঁজছিল গার্দিওলার দল।

হ্যালান্ডের কাছে গোল করা খুব সহজ
ডর্টমুন্ডের হয়ে নিজের সর্বশেষ ম্যাচে হ্যালান্ড

মাঝে প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন ক্লাবটি টটেনহ্যামের ইংলিশ স্ট্রাইকার হ্যারি কেনের উপর নজর রেখেছিল তারা। সেখানে ব্যর্থ হওয়ায় হ্যালান্ডে আগ্রহ দেখায় তারা। দলবদলের নানা নাটকীয়তা এবং রোমাঞ্চের পর ইতিহাদে তাকে টানতে পেরেছে সিটি। ডর্টমুন্ডে ৮৮ ম্যাচে ৮৫ গোল করা হ্যালান্ডকে পেয়ে খুশি সিটি। নিজেদের নতুন তারকার উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করে ক্লাব পরিচালক টজিকি বেগিরিস্টেন বলেছেন, ‘স্ট্রাইকার হিসেবে আর্লিংয়ের কাছে যা চাই তার সবটাই আছে। আমরা নিশ্চিত তিনি সিটি স্কোয়াডে ও নতুন পদ্ধতিতে মানিয়ে নেবেন।’ ‘হালান্ড দুর্দান্ত উত্থান পেয়েছেন, তার বয়স এখন মাত্র ২১ বছর। সেরা বছরগুলো তার সামনে রয়েছে। আমরা আত্মবিশ্বাসী, তিনি গার্দিওলার অধীনে আরও ভালো কাজ করতে পারবেন।’

লিওনেল মেসি বা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে এখনই একটা হুমকি দিয়ে রাখতে পারেন আর্লিং হ্যালান্ড। সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড ভাঙার হুমকি। ক্লাব ফুটবলে হোক কিংবা জাতীয় দলের জার্সিতে। কারণ গোল করা নরওয়ের এই স্ট্রাইকারের কাছে ডাল-ভাতের মতো। রেড বুল সলসবার্গ, বরুশিয়া ডর্টমুন্ড কিংবা নরওয়ে, যেখানেই তিনি মাঠে নামছেন ম্যাচ প্রতি একটা করে গোল করছেন। রোববার রাতে উয়েফা নেশনস লিগে সুইডেনের বিপক্ষে তার দল জিতেছে ৩-২ গোলে।

হ্যালান্ডের কাছে গোল করা খুব সহজ
সালজবার্গের জার্সি গায়ে হ্যালান্ড

ওই ম্যাচেও জোড়া গোল করেছেন ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দেওয়া হ্যালান্ড।  ম্যাচের ১০ মিনিটে তিনি গোল করে দলকে প্রথম লিড এনে দেন। ৫৪ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে ব্যবধান দ্বিগুন করেন। এরপর ৬২ মিনিটে গোল ব্যবধান কমায় সুইডেন। ৭৭ মিনিটে আবার লিড নেয় নরওয়ে। যোগ করা সময়ে গোল করে হারের ব্যবধান ছোট করে মাঠ ছাড়ে সুইডিসরা জোড়া গোল দিয়ে জাতীয় দলের হয়ে হ্যালান্ড ২০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন। ২১ বছরেই দেশের হয়ে ২০ গোল করতে তিনি নিয়েছেন মাত্র ২১ ম্যাচ। যেন ক্লাব ফুটবল আর আন্তর্জাতিক ফুটবল সমান তার কাছে।

আরও পড়ুন:

“হ্যালান্ডের কাছে গোল করা খুব সহজ !”-এ 2-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন